রাজশাহী নগরজুড়ে চলছে ভোট উৎসব

রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে মঙ্গলবার প্রতীক বরাদ্দের পর ভোটের মাঠে নেমে পড়েছেন প্রার্থীরা। প্রচার-প্রচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে সিটি করপোরেশন এলাকা। ব্যানার-পোস্টারে ছেয়ে গেছে বাজার, রাস্তা, মহল্লা। সবমিলিয়ে নগরজুড়ে চলছে ভোট উৎসব।

নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করে ভোটের প্রচার শুরু করেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

আর শাহমখদুম (র:) মাজার জিয়ারত করে প্রচার শুরু করেন বিএনপির মনোনিত প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল।

রিটার্নিং অফিসার আমিরুল ইসলাম জানান, প্রথমে সংরক্ষিত আসনের নারী প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক দেয়া হয়। মেয়র পদে ও এর পর সাধারণ কাউন্সিলর পদের প্রার্থীদের প্রতীক দেয়া হয়। যারা একই প্রতীক চেয়েছেন তাদের লটারির মাধ্যমে প্রতীক দেয়া হয়েছে।

মেয়র প্রার্থীদের মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনকে নৌকা, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ধানের শীষ, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (মতিন) হাবিবুর রহমান হাবিবকে কাঁঠাল, ইসলামী আন্দোলনের সরিফুল ইসলাম হাতপাখা, স্বতন্ত্র মুরাদ মোর্শেদ হাতি প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ২১৭ জন প্রার্থী। এর মধ্যে মেয়র পদে ৫ জন, সাধারণ কাউন্সিলরে ১৬০ জন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ৫২ জন।

প্রতীক বরাদ্দের পর দলীয় প্রার্থীরা নগরীতে পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন টাঙ্গানোসহ মাইকে প্রচার শুরু করেন। বিশেষ করে দলীয় প্রার্থীদের প্রতীক নির্ধারণ থাকায় তারা আগে থেকে ছাপার কাজ সেরে রাখেন। সোমবার দিবাগত রাত ১২টার পর থেকেই অনেকেই প্রচারপত্র টাঙ্গানো শুরু করেন।

মঙ্গলবার দুপুরে আওয়ামী লীগের মনোনিত মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেন। ১৪ দফার ইশতেহারে রাজশাহীতে এক লাখ লোকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থার অঙ্গিকারসহ শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসেবাকে গুরুত্ব দিয়ে মেগা সিটি গড়ে তুড়ে তোলার প্রতিশ্রতি দেন তিনি।

অপরদিকে, দুপুরে শাহমখদুম (র:) মাজার জিয়ারত করে নির্বাচনী প্রচারে নামেন বিএনপির মনোনিত মেয়র প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। এসময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, অরজগতা সৃষ্টিকারিদের বিরুদ্ধে নগরবাসী শান্তির প্রতীক ধানের শীষে ভোট দিবে এবং বিপুল ভোটে তাকে বিজয়ী করবেন।

রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সাধারণ ওয়ার্ড ৩০টি ও সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড ১০টি। মোট ভোট কেন্দ্র ১৩৮টি। ভোটার সংখ্যা তিন লাখ ১৮ হাজার ১৩৮ জন। এর পুরুষ ভোটার এক লাখ ৫৬ হাজার ৮৫ জন ও নারী ভোটার এক লাখ ৬২ হাজার ৫৩ জন। আগামী ৩০ জুলাই ভোট গ্রহণ করা হবে।

আওয়ামী লীগের নেতৃত্বধীন মহাজোটের মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন গণসংযোগ করেছেন। মঙ্গলবার দুপুর থেকে নগরের সাহেববাজার ও গোরহাঙ্গা এলাকায় গণসংযোগ করে নৌকায় ভোট দিয়ে তাকে মেয়র নির্বাচিত করার জন্য ভোটোদের প্রতি আনুরোধ জানান লিটন। এসময় তিনি রাজশাহী উন্নয়নের মহাপরিকল্পনা তুলে ধরে নির্বাচনী ইশতেহার ভোটারদের হাতে দেন।

এর আগে দুপুরে দলীয় কার্যালয়ে খায়রুজ্জামান লিটন তার নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেন। কর্মসংস্থান সৃষ্টিকে গুরুত্ব দিয়ে তার নির্বাচনী ইশতেহারে ১৪ দফা তুলে ধরেন।

অপরদিকে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের মেয়র প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল গণসংযোগ করেছেন। মঙ্গলবার দুপুর থেকে তিনি নগরের ৯নং ও ১২নং এলাকায় গণসংযোগ করেন।

এর আগে বুলবুল আল-জামিয়া আল-ইসলামিয়া আল্লামা মুহাম্মদ মিয়া কাসেমী রহ: (ইসলামিয়া মাদরাসা) মাদরাসায় বড় হুজুরের সাথে সাক্ষাত করে দোয়া নেন। পরে তিনি শাহ্ মখ্দুম রুপোশ (রহ:) এর মাজার জিয়ারত করে নির্বাচনী প্রচার শুরু করেন।

মাজারে দোয়া ও মোনাজাত শেষে নেতৃবৃন্দকে সঙ্গে নিয়ে ৯নং ও ১২নং ওয়ার্ডের দরগাপাড়ার এলাকায় বাড়ি বাড়ি যান। পরে বুলবুল রাজশাহী কলেজের সামনে রাস্তা দিয়ে সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে যান।

এসময় তিনি আরডিএ মার্কেট এলাকায় বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের কাছে দোয়া ও ধানের শীষের জন্য ভোট প্রার্থণা করেন।

পাঠকের মতামত