তিন দিনেই শেষ টাইগারদের টেস্ট

অ্যান্টিগা টেস্টে তৃতীয় দিনেই গুটিয়ে গেল বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে পাঁচ দিনের টেস্ট ম্যাচে তৃতীয় দিনের মধ্যাহ্ন বিরতির আগেই বাংলাদেশ ১৪৪ রানে অলআউট হয়ে যায়। এর ফলে ইনিংস ও ২১৯ রানের ব্যবধানে জয় তুলে নিয়েছে স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

বাংলাদেশ: ৪৩ ও ১৪৪

ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ৪০৬

ক্যারিবীয়রা এক ইনিংসে যে রান করে, তা দুইবার ব্যাটিংয়ে নেমেও করতে পারেনি বাংলাদেশ। যে কারণে ইনিংস ও ২১৯ রানে হেরে যায় সাকিব বাহিনী।

প্রথম ইনিংসে সাকিব-তামিমরা ৪৩ রানে অলআউটের লজ্জায় পড়ার পর আপেক্ষিক দৃষ্টিতে মনে হয়েছিল অ্যান্টিগার উইকেট বোলিং সহায়ক। কিন্তু সেই উইকেটেই ব্যাটিং স্বর্গ বানিয়ে নিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সাকিব-তামিম-মুশফিক-রিয়াদরা যে উইকেটে ৪৩ রানে অলআউট হলেন, সেই একই উইকেটে ৪০৬ রানের পাহাড় গড়েছে স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল।

৩৬৩ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে বৃহস্পতিবার শেষ বিকালে ৬২ রান তুলতেই টপঅর্ডার ছয় ব্যাটসম্যানের উইকেট হারিয়েছে বসে বাংলাদেশ। অসহায় আত্মসমর্পণ করে সাজঘরে ফেরেন তামিম, মুমিনুল, লিটন, মুশফিক, সাকিব ও মিরাজরা।

শুক্রবার তৃতীয় দিনের খেলায় ৩০১ রানে পিছিয়ে থেকে নতুন ভাবে শুরু করে বাংলাদেশ। এদিন শুরুর ওভারেই উইকেট হারান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তৃতীয় দিনে জেসন হোল্ডারের করা প্রথম ওভারের দ্বিতীয় বলটি রিয়াদের ব্যাটের কানায় লেগে, তৃতীয় স্লিপে থাকা রোস্ট চেজের হাতে গিয়ে জমা পড়। ক্যারিবীয়রা আউটের আবেদন করলে ফিল্ড আম্পায়ারদ্বয় টিভি আম্পায়ারের সহযোগিতা নিয়ে আউটের সিদ্ধান্ত দেন।

৬৩ রানে ৭ উইকেট পড়ে যাওয়ার পর অবস্থা বেগতিক দেখে, ব্যাট চালিয়ে খেলেন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান সোহান। তার এই রান তোলার যাত্রায় ফেরেন পেস বোলার কামরুল ইসলাম রাব্বি। ৮৮ রানে ৮ উইকেট পড়ে যাওয়ার পর সোহানকে যোগ্য সঙ্গ দেন রুবেল হোসেন।

নবম উইকেটে প্রতিরোধ গড়ে তোলোন সোহান-রুবেল। তাদের দায়িত্বশীলতায় শতরানের নিচে অলআউট হয়ে যাওয়ার লজ্জা এড়িয়ে ১৪৪ রান করে বাংলাদেশ দল। সোহান-রুবেলরা গড়েন ৫৫ রানের জুটি।

পর্যাপ্ত উইকেট হাতে না থাকায় টেস্ট ক্রিকেটকে টি-টোয়েন্টির আদলে খেলেন সোহান। ক্যারিবীয় সফরে নিজের ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে তুলে নেন মেইডেন ফিফটি। মিগুল কামিন্সের বাউন্সি বলে লংঅনের উপর দিয়ে বাউন্ডারি হাঁকাতে গিয়ে সেই কামিন্সের হাতেই ধরা পড়েন সোহান। সাজঘরে ফেরার আগে ৭৪ বলে ৬ চার ও দুই ছক্কায় ৬৪ রান করেন বাংলাদেশ দলের এই তরুণ ব্যাটসম্যান।

সোহানের বিদায়ের মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসের পরিসমাপ্তি নিশ্চিত হয়ে যায়। বাকি ছিল আনুষ্ঠানিকতা। রুবেল হোসেনের উইকেট তুলে নেয়ার মধ্য দিয়ে সেই আনুষ্ঠানিকতাও সেরে নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৪৩/১০ (লিটন ২৫; কেমার রোচ ৫/৮)।

এবং ২য় ইনিংস: ১৪৪/১০ (সোহান ৬৪, রুবেল১৬, মাহমুদউল্লাহ ১৫, তামিম ১৩;গাব্রিল ৫/৭৭, হোল্ডার ৩/৩০, কামিন্স ২/১৬)।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ম ইনিংস: ৪০৬/১০ (ব্রাথওয়েট ১২১, হোপ ৬৭, স্মিথ ৫৮, পাওয়েল ৪৮; আবু জায়েদ ৩/৮৭, মিরাজ ৩/১০১)।

পাঠকের মতামত