মামলা তুলে না নিলে আবারও আন্দোলনে নামার হুমকি

সারাদেশে কোটা সংস্কার দাবি আন্দোলনের মধ্যে ঘটে যাওয়া রাজধানীর শাহবাগে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বাসভবনে হামলার ঘটনায় করা মামলা তুলে না নিলে আবার আন্দোলনে নামার হুমকি দিয়েছে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ।

আজ সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গ্রন্থাগারের সামনে সংবাদ সম্মেলনে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের পক্ষ থেকে এই হুঁশিয়ারি দেয়া হয়।

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে তুমুল আন্দোলনের মধ্যে গত ১২ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংসদে ‘কোটা থাকার দরকার নাই’ বলে বক্তব্য দেয়ার পর স্থগিত কয়েছে আন্দোলন। তবে এর মধ্যে আন্দোলনকারীরা বিশেষভাবে উদ্বিগ্ন দুই মামলা নিয়ে।

গত ৮ এপ্রিল শাহবাগ মোট প্রায় পাঁচ ঘণ্টা অবরোধ করে রাখার পর সেখান থেকে ছাত্রদের তুলে দেয় পুলিশ। আর এই চেষ্টায় দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ছড়ায়। এর রেশ থাকে রাতভর। শাহবাগ থেকে শুরু করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকাতেও সংঘর্ষে জড়ায় ছাত্ররা। আর এতে এক ছাত্রের মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে রাতে উপাচার্য বাসভবনে বেপরোয়া হামলা হয়। হামলাকারীরা গাড়ি, বাসার আসবাবপত্র পুড়িয়ে দেয়ার পাশাপাশি স্বর্ণালঙ্কার, প্রত্মতাত্ত্বিক সামগ্রী এবং ঐতিহাসিক নথিপত্র লুট করে বা নষ্ট করে। এই হামলাকারীদেরকে ছাড় না দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। আর এই ঘটনায় হয়েছে মোট চারটি মামলা। একইভাবে শাহবাগ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংঘর্ষের ঘটনাতেও সমানসংখ্যক মামলা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে কোটা আন্দোলনকারীদের নেতা বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আন্দোলনের যুগ্ম আহ্বায়ক নূর হোসেন বলেন, ‘কোটা সংস্কার আন্দোলনে আমাদের বিরুদ্ধে পুলিশ এবং বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ভিত্তিহীনভাবে যে অজ্ঞাতনামা মামলা দিয়েছে তা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছিলাম। কিন্তু তারা তা এখনো প্রত্যাহার করেনি। আগামী দুই দিনের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে যে অজ্ঞাতনামা মামলা দিয়েছে তা প্রত্যাহার না করলে ছাত্রসমাজ আবার আন্দোলনে নামবে।’

পাঠকের মতামত