গরমে প্রাণশক্তি ফেরাবে ডাবের পানি!

ডাবের পানি প্রাণে এনে দিতে পারে স্বস্তি। তবে তৃষ্ণা নিবারণের পাশাপাশি ডাবের রয়েছে বেশ কিছু স্বাস্থ্য উপকারিতা।

প্রতি ১০০ গ্রাম ডাবের পানিতে জলীয় অংশ ৯৫ গ্রাম, মোট খনিজ পদার্থ ০.৩ গ্রাম, আমিষ ২.৩ গ্রাম, শর্করা ২.৪ গ্রাম, চর্বি ০.১ গ্রাম, ক্যালসিয়াম ১৫ মিলিগ্রাম, ফসফরাস ০.০১ মিলিগ্রাম, আয়রন ০.১ মিলিগ্রাম, ভিটামিন বি ১-০.১১ মিলিগ্রাম, ভিটামিন বি২ ০.০২ মিলিগ্রাম, ভিটামিন সি ৫ মিলিগ্রাম ও খাদ্যশক্তি ২৩ কিলোক্যালরি।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় : ডাবের পানিতে রয়েছে রোগ প্রতিরোধ করার ক্ষমতা। ডাবের পানি আমাদের শরীরের ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়াগুলো ধ্বংস করে যা সৃষ্টি করে মাড়ি ফোলা জনিত রোগ। এছড়া এটি আপনাকে ঠান্ডা, কাশি থেকেও দূরে রাখে। এমনকি শীতের মৌসুমেও এটি আপনাকে রাখে সুস্থ।

কিডনি রোগীর জন্য উপকারী : যাদের কিডনিতে পাথর আছে, তাদের জন্য ডাবের পানি খুবই উপকারী। এটির টক্সিন আপনার কিডনির পাথরকে গুড়ো করতে সাহায্য করে। তাছাড়া এটি রক্ত প্রবাহকে স্বাভাবিক রাখতে সাহায্য করে এবং রক্তনালীদ্বয়কে পরিষ্কার রাখে।

কর্মশক্তি বাড়ায় : ডাবের পানি আপনার থায়রোয়েড গ্রন্থির হরমন বৃদ্ধি করে, যা আপনার কোষে শক্তির যোগান দেয়। নিয়মিত ডাবের পানি পান করলে আপনি আপনার নিজের মাঝে প্রাণশক্তি ফিরে পাবেন, যা আগে অনুভব করেন নি।

হজম শক্তি বাড়ায় : গ্যাস্ট্রিকজনিত সমস্যার কারণে হজমে প্রায় ব্যাঘাত ঘটে। ডাবের পানি গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কমাতে সাহায্য করে এবং হজমশক্তি বৃদ্ধি করে। যখন আপনি সপ্তাহে অন্তত একদিন ডাবের পানি পান করা শুরু করবেন আপনি আগের চেয়ে নিজেকে কর্মদক্ষ ও প্রাণবন্ত অনুভব করবেন।

হঠাৎ মাথাব্যথা থেকে মুক্তি : মাথাব্যথা মূলত ক্লান্তি বা কাজের চাপের জন্য হয়ে থাকে। ডাবের পানি আপনার ক্লান্তি দূর করতে সাহায্য করে, এবং মানসিক চাপ কমায়। যা আপনাকে হঠাৎ করা মাথাব্যথা থেকে দেয় ঝটপট মুক্তি।

এছাড়া প্রস্রাবের বিভিন্ন সমস্যায় ডাবের পানি পানে উপকার পাওয়া যায়। মুখে জলবসনন্তের দাগসহ বিভিন্ন ছোট ছোট দাগের জন্য সকাল বেলা ডাবের পানি দিলে দাগ মুছে এবং মুখের লাবণ্য ও উজ্জ্বলতা বাড়ে। গ্লুকোজ স্যালাইন হিসেবেও ডাবের পানি ব্যবহৃত হয়।

পাঠকের মতামত