হিল পেইনের কারণ ও প্রতিকারে করণীয়

পায়ের গোড়ালির ব্যথা সাধারণত গোড়ালির নিচের দিকে অথবা গোড়ালির পেছন দিকে হয়। পায়ের গোড়ালির এ ব্যথাকে ইংরেজিতে ‘হিল পেইন’ বলে। যদি পায়ের গোড়ালির ব্যথার কারণে আপনাকে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে হাঁটতে হয় বা সকালে বিছানা থেকে কয়েক কদম পা ফেলতে গিয়েই যদি পায়ের তলায় ব্যথা অনুভব করেন তাহলে বুঝতে হবে যে আপনার প্ল্যানটার ফেসাইটিস হয়েছে।

আমাদের পায়ের তলায় যে কানেক্টিভ টিস্যু থাকে তাকে প্ল্যানটার ফেসিয়া বলে। এই প্ল্যানটার ফেসিয়া নামক সংযোগকারী কলার ইনফ্লামেশন বা প্রদাহের জন্যই প্ল্যানটার ফেসাইটিস বা পায়ের গোড়ালির ব্যথা হয়।  এটা অনেক বেশি পীড়াদায়ক একটি সমস্যা। তবে এটা মারাত্মক কোনো সমস্যা না। এই সমস্যা প্রতিরোধের সহজ কিছু উপায় আছে। আসুন আমরা জেনে নিই যন্ত্রণাদায়ক সমস্যাটির আরো কিছু কারণ ও এর প্রতিকার সম্পর্কে।

প্ল্যানটার ফেসাইটিস হওয়ার কারণ:
. হিলস্পার। দীর্ঘ দিন প্লান্টার ফাসাইটিস থাকলে ফাসা টিস্যু ব্যান্ড যেখানে আপনার হিল বোনের বা গোড়ালির হাড়ের সাথে সংযুক্ত হয়, সেখানে হিলস্পার (ক্যালসিয়াম জমা হওয়া) গঠন হতে পারে। আপনার হাড়ের উদ্ভেদ দেখার জন্য এক্স-রে করা যেতে পারে। উদ্ভেদ বা প্রকটন বিভিন্ন মাপের হতে পারে।
. পায়ের পাতার মাংসপেশির দুর্বলতা
. গোড়ালির পেশী শক্ত হলে
. গোড়ালিতে অনেক বেশি চাপ পড়লে
. ত্রুটিপূর্ণ জুতা পরার কারণে
. কম নড়াচড়া করার জন্য এবং
. হাঁটু বা কোমরের কোনো সমস্যার কারণে।
. ওজন বেশি হলেও প্ল্যানটার ফেসাইটিস হতে পারে।
. আঘাতজনিত কারণ। এ ক্ষেত্রে গোড়ালিতে আঘাত লাগলে ব্যথা অনুভূত হয়। হাড় ভাঙলে অথবা চাপ পড়লে ব্যথার সৃষ্টি হয়।
. হাড়ের টিউমার।
. বার্সাইটিস।
. ফাইব্রোমায়ালজিয়া।
. গোড়ালির প্যাড ছিঁড়ে যাওয়া।
. অস্টিওমাইলাইটিস। এটি হাড়ের সংক্রমণ।
. প্রান্তিক স্নায়ুর সমস্যা।
. প্লান্টার ফাসাইটিস। এটি গোড়ালির বিশেষ ধরনের বাত। বেশি দৌড়ালে বা লাফঝাঁপ দিলে টিস্যু ব্যান্ড বা ফাসার (এটি গোড়ালির হাড় থেকে পায়ের আঙুলের গোড়া পর্যন্ত বিস্তৃত) প্রদাহ হতে পারে।

উপসর্গ:
. সকালে বিছানা থেকে নেমে হাঁটতে গেলে গোড়ালিতে ছুরি দিয়ে খোঁচানোর মতো তীক্ষ্ণ এক ধরনের ব্যথা হয় যা কিছুক্ষণ পর ভালো হয়ে যায়।
. পায়ের পাতা বা গোড়ালির মাংসপেশি শক্ত হয়ে যায়।
. হঠাত ব্যায়াম করলে ব্যথা হতে পারে।
. দৌড়ালে বা লাফালাফি করলে ব্যথা হতে পারে।
. অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে কাজ করলে বা অনেকক্ষণ বসে থাকার পর উঠতে গেলে গোড়ালিতে ব্যথা হয়।

প্রতিকার:
বরফ ম্যাসাজ:
যেহেতু প্ল্যানটার ফেসাইটিস টিস্যুর প্রদাহের জন্য হয় সেহেতু বরফ এই প্রদাহকে দূর করতে পারে। ফ্রিজের একটি ঠান্ডা বোতল পায়ের নিচে রেখে সামনে পেছনে ঘোরান, এভাবে ১০ মিনিট করুন। দিনে দুইবার এটা করতে পারেন, ব্যথা কমে যাবে।

টেনিস বল ম্যাসাজ:
পায়ের নিচে ১টি টেনিস বল রেখে সামনে পেছনে কয়েক মিনিট ঘোরান। এটাতে কিছুটা ব্যথা লাগতে পারে। আস্তে আস্তে পা দিয়ে বলের উপর চাপ বাড়াতে থাকুন। এভাবে দুই পায়ে কয়েকবার করে করুন।

কাফ স্ট্রেচিং:
দেয়ালে দিকে মুখ রেখে দাঁড়ান। দুই হাত দেয়ালে চেপে রাখুন, যে পায়ে ব্যথা হচ্ছে সেই পা বাঁকা করে ফ্লোর এর উপর চাপ দিন ও অন্য পা সোজা রাখুন। দৌড়ানোর মতো ভঙ্গি হবে। এভাবে ৩০ সেকেন্ড থাকুন। তারপর অন্য পায়েও একইভাবে করুন। প্রতি পায়ে তিনবার করে করুন।

বিছানায় গোড়ালির স্ট্রেচিং:
সকালে পায়ের পেশী শক্ত হয়ে থাকে। তাই বিছানা থেকে নামার আগেই পেশীকে শিথিল করার জন্য স্ট্রেচিং করে নিন। এর জন্য একটি তোয়ালে বা বেল্ট দিয়ে পায়ের পাতায় জড়িয়ে নিজের দিকে টান দিন। এতে গোড়ালিতে টান পড়বে। ৩০ সেকেন্ড এভাবে টেনে ধরে রাখুন। পাঁচবার করে প্রতি পায়ে করুন। তারপর বিছানা থেকে পা ফেলুন।

সতর্কতা:
হাই হিল না পড়ে স্লিপার জুতা পরুন।
ওজন কমানোর চেষ্টা করুন।
পূর্ণ বিশ্রামে থাকবেন এবং কিছু ব্যায়াম করবেন।
পেছনে খোলা থাকে এমন জুতা পরবেন।
প্রদাহ কমাতে আপনার গোড়ালির পেছনে বরফ দেবেন।
এই পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করার পরেও যদি গোড়ালির ব্যথা থাকে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ব্যথানাশক ওষুধ খাবেন।

পাঠকের মতামত