শর্ত পূরণ ব্যর্থ বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলো: নাহিদ

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, কিছু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এখনো ন্যূনতম শর্ত পূরণ করতে পারেনি। শর্ত পূরণে ব্যর্থ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর বিরুদ্ধে অব্যাহত চাপ রেখেও তাদের সঠিক ধারায় আনা কঠিন হয়ে পড়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া ছাড়া তারা আর কোনো পথ খোলা রাখেনি।

রোববার রাজধানীর ফার্মগেটে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে সেন্ট্রাল উইমেন্স ইউনিভার্সিটির (সিডব্লিউইউ) দ্বিতীয় সমাবর্তন অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী এ কথা বলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য ও রাষ্ট্রপতির প্রতিনিধি হিসেবে সমাবর্তনে সভাপতিত্ব করেন তিনি। সমাবর্তনে মোট ১২৫ জন শিক্ষার্থীকে ডিগ্রির সনদ দেওয়া হয়।
দেশের বাস্তবতা ও জনগণের আর্থসামাজিক অবস্থা বিবেচনা করে ভর্তি, টিউশন ফিসহ সব ব্যয় একটি সীমা পর্যন্ত নির্ধারিত রাখতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর প্রতি আহ্বান জানান শিক্ষামন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে সমাবর্তন বক্তা ছিলেন বিশিষ্ট রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক রওনক জাহান। তিনি বলেন, ‘ডিগ্রি পাওয়া শিক্ষার্থীদের আকাঙ্ক্ষা হতে হবে আকাশসম। জীবনের চ্যালেঞ্জগুলো নিজেদের ভেতরকার শক্তি ও যোগ্যতাকে আবিষ্কারের একেকটি সুযোগ। সমাজের নিন্দুকেরা যেন স্বপ্নপূরণের পথে বাধা না হয়ে দাঁড়ায়। বাধা পেরোতে সক্ষম হলেই তোমাদের দেখানো পথ অন্যরা অনুসরণ করবে। এভাবেই সমাজের দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন হবে।’

সমাজের সুবিধাবঞ্চিত নারীদের উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে ভূমিকা রাখায় সেন্ট্রাল উইমেন্স ইউনিভার্সিটিকে ধন্যবাদ জানান বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান।
স্বল্প ব্যয়ে নারীদের শিক্ষা দেওয়ার প্রচেষ্টায় সবার সহযোগিতা কামনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারপারসন কাজী জাহিদুল হাসান।

সূচনা বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য পারভীন হাসান বলেন, নারীদের গুণগত ও মানসম্মত শিক্ষা দিতে বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয়। এই ধারাবাহিকতা বিশ্ববিদ্যালয়টি এখনো ধরে রেখেছে। সহশিক্ষা হলে শিক্ষার্থীসংখ্যা হয়তো বাড়ত। তবে সেন্ট্রাল উইমেন্স ইউনিভার্সিটি নারীদের শিক্ষাবিস্তারের মধ্য দিয়ে নারীর ক্ষমতায়নকে প্রাধান্য দিয়ে আসছে।
বক্তব্য পর্ব শেষে সোসিওলজি অ্যান্ড জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারপারসন অধ্যাপক মালেকা বেগম, ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ অ্যান্ড মডার্ন ল্যাঙ্গুয়েজ বিভাগের চেয়ারপারসন সহযোগী অধ্যাপক আবদুস সেলিম এবং ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের চেয়ারপারসন সহযোগী অধ্যাপক হাসান সিরাজী নিজ নিজ বিভাগের শিক্ষার্থীদের সমাবর্তনের জন্য উপস্থাপন করেন।

সমাবর্তনে তিনজন শিক্ষার্থী উপাচার্য পদক পান। তাঁরা হলেন তাহমিনা আকতার, ঈষিকা দাস ও শারমিন সুলতানা।

মেয়েদের জন্য ১৯৯৩ সালে পুরান ঢাকায় সেন্ট্রাল উইমেন্স ইউনিভার্সিটি প্রতিষ্ঠা করেন অধ্যাপক বেগজাদী মাহমুদা নাসির।

পাঠকের মতামত