মুশফিকুরের নাগিন নাচ ভাইরাল

নিদাহাস ট্রফিতে বাংলাদেশ ক্রিকেটের ইতিহাসে অন্যতম স্মরণীয় ম্যাচটি শনিবার শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে খেলেছে টাইগার বাহিনী। প্রথমে ব্যাট করে বাংলাদেশের সামনে ২১৫ রানের টার্গেট রাখে শ্রীলঙ্কা। জবাবে ১৯.৪ ওভারে মাত্র ৫ উইকেট হারিয়ে জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় রান তুলে নেয় বাংলাদেশ।
আর এর পরই নতুনরূপে দেখা দেন ম্যাচের নায়ক মুশফিকুর রহিম। ৩৫ বলে ৭২ রানের ম্যাচ উইনিং ইনিংস খেলে নাগিন ডান্স করতে দেখা যায় তাকে।  ইনিংসসে বাকি। শেষের রান নিয়ে দেখান নাগিন ড্যান্স। আর সেই ড্যান্সের ভিডিও টুইটারে পোস্ট হওয়ার পরই একের পর এক মজার টুইট করতে থাকেন সমর্থকরা।

এক ভারতীয় সাংবাদিক মুশফিককে অভিনন্দন জানালেন, ‘কাল আপনার উদ্‌যাপনটা দারুণ হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মুশফিক বলেন, ‘নাচটা আসলে আমাদের অপুর। ওর উদ্‌যাপনটাই আমি করেছি’ ভারতীয় সাংবাদিকটি জানতে চাইলেন এই ‘অপু’টা কে? অপু বলতে নাজমুল ইসলাম, বাংলাদেশ দলের তরুণ বাঁহাতি স্পিনার ঠিক তখনই তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকারের সঙ্গে টিম হোটেলে ফিরছিলেন। ভারতীয় সাংবাদিকের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হলো, মুশফিকের হাত ধরে আন্তর্জাতিকভাবে বিখ্যাত হয়ে যাওয়া নাগিন নাচের ‘আবিষ্কারক’ হচ্ছেন এই নাজমুল—যিনি উইকেট পেলেই ‘ছোবল মারা’র ভঙ্গিতে নাচেন! আরে এঁকেই তো খুঁজছি—এমন অভিব্যক্তিতে ভদ্রলোক চটপট হাতে থাকা খাতাটা এগিয়ে দিলেন নাজমুলের দিকে, ‘আপনার অটোগ্রাফটা দিন!’ নাজমুলের অটোগ্রাফ দিতে দেখে তামিম-সৌম্যর টিপ্পনী! গত শুক্রবার বিকেলে খেলোয়াড়দের মুখে যে আঁধার দেখা গিয়েছিল, এক দিনের ব্যবধানে সেটি সরে গেছে এক জয়েই।

শ্রীলঙ্কান খাবারে হাঁপিয়ে ওঠা নির্বাচক হাবিবুল বাশার দলের ম্যানেজার খালেদ মাহমুদকে নিয়ে মন ভরে খাওয়া যায়, এমন রেস্তোরাঁর সন্ধানে বেরিয়েছেন। প্রত্যাশামতো রেস্তোরাঁর সন্ধান পাওয়া যাবে কি না, সেটি নিশ্চিত না হলেও তিনি কিছুটা তৃপ্ত, পরাজয়ের ভিড়ে একটা জয়ের সন্ধান অন্তত মিলেছে! যদিও হাবিবুল বলছেন, ‘জয়টা আত্মবিশ্বাস দিচ্ছে ঠিকই, তবে এখনো যেতে হবে বহু দূর।’

পাঠকের মতামত