বাধা কাটল উত্তরা মেডিকেলের ৫৭ শিক্ষার্থীর

উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজে চলতি শিক্ষাবর্ষে ভর্তিবঞ্চিত শিক্ষার্থী তারিকুল ইসলামকে এক সপ্তাহের মধ্যে কলেজটিতে ভর্তিতে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ও কলেজ কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। আদালতে রিট আবেদনকারীর পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এ এম আমিনউদ্দিন। উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী আইনজীবী শেখ ফজলে নূর তাপস। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী মোহাম্মদ মেহেদী হাসান চৌধুরী।

এর ফলে চলতি শিক্ষাবর্ষে সাধারণ কোটায় ভর্তি হওয়া ৫৭ শিক্ষার্থীর শিক্ষা কার্যক্রম চলতে আইনগত কোনো বাধা নেই বলে জানিয়েছেন উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজের আইনজীবী। এর আগে মেধাতালিকায় থাকা ভর্তিবঞ্চিত এক শিক্ষার্থী তারিকুল ইসলামের বাবা নজরুল ইসলামের করা রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ৯ জানুয়ারি হাইকোর্ট রুলসহ অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ দেন। ‘আগে এলে আগে পাবেন’ ভিত্তিতে চলতি শিক্ষাবর্ষে সাধারণ কোটায় ভর্তি হওয়া ৫৭ শিক্ষার্থীকে শিক্ষা কার্যক্রমসহ ভর্তি পরবর্তী কার্যক্রম থেকে এক মাসের জন্য বিরত রাখতে নির্দেশ দেওয়া হয়। এই আদেশ স্থগিত চেয়ে কলেজ কর্তৃপক্ষ আবেদনটি করে, যা চেম্বার বিচারপতির আদালত হয়ে আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য ওঠে। দুদিন শুনানির পর গতকাল মঙ্গলবার আদালত আজ আদেশের দিন রাখেন।

এর ধারাবাহিকতায় আজ আদেশ হয়। আদেশের পর আইনজীবী মোহাম্মদ মেহেদী হাসান চৌধুরী বলেন, শিক্ষার্থী তারিকুল ইসলামকে এক সপ্তাহের মধ্যে কলেজে ভর্তি করতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ও কলেজ কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ। পাশাপাশি হাইকোর্টের দেওয়া রুল নিষ্পত্তি করে দেওয়া হয়েছে। ফলে সাধারণ কোটায় ভর্তি হওয়া ৫৭ শিক্ষার্থীর শিক্ষা কার্যক্রম থেকে বিরত রাখতে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ আর থাকছে না।

সুত্র: RTV অনলাইন

পাঠকের মতামত