ফোরজি লাইসেন্সের জন্য বিটিআরসির প্রস্তাব আহ্বানের বিজ্ঞপ্তি স্থগিত

ফোরজি এলটিই সেলুলার মোবাইল ফোন সার্ভিসের লাইসেন্সের জন্য প্রস্তাব আহ্বান করে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) জারি করা বিজ্ঞপ্তির কার্যক্রম স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে বিচারপতি নাঈমা হায়দার ও বিচারপতি জাফর আহমেদের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ রুলসহ এ আদেশ দেন।

এর আগে গত বছরের চার ডিসেম্বর বিটিআরসি ফোরজি এলটিই সেলুলার মোবাইল ফোন সার্ভিসের লাইসেন্সের জন্য প্রস্তাব আহ্বান করে বিজ্ঞপ্তি দেয়। এ অনুসারে আগামী ১৪ জানুয়ারি প্রস্তাব জমা দেওয়ার দিন ছিল। তবে ওই বিজ্ঞপ্তির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে বাংলা লায়ন কমিউনিকেশনস লিমিটেড গতকাল বুধবার হাইকোর্টে রিট করে। আজ রিট আবেদনের ওপর শুনানি হয়।

আদালতে রিট আবেদনটি দায়েরে করে বাংলালায়ন কমিউনিকেশন্স লিমিটেড। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী ড. কামাল হোসেন এবং তাঁর সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী রমজান আলী শিকদার ও সাইফুল আলম চৌধুরী। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সমরেন্দ্র নাথ বিশ্বাস।

আদেশের পর আবেদনকারীর এক আইনজীবী বলেন, সেলুলার মোবাইল ফোন সার্ভিসেস, এটা করে যে নীতিমালা আহ্বান করেছিলো, বিটিআরসির নোটিশ যেটা দেওয়া হয়েছিলো, ২০০৮ সালের ব্রডব্যান্ড গাইডলাইন্সের সঙ্গে তা সাংঘর্ষিক। এ কারণে বিজ্ঞপ্তিতে স্থগিতাদেশ দিয়ে রুল জারি করেছেন আদালত। এছাড়া ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব, বিটিআরসির চেয়ারম্যানসহ বিবাদীদের এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

গত ৪ ডিসেম্বর বিশেষ কমিশন সভায় দুই গাইডলাইন প্রকাশ ও আবেদন আহ্বানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ওই দিন বিটিআরসির ওয়েবসাইটে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। ১৪ জানুয়ারি পর্যন্ত আবেদন গ্রহণের পর ২৫ জানুয়ারি যোগ্য আবেদনকারীর তালিকা প্রকাশের কথা জানায় বিটিআরসি।

বিটিআরসি জানায়, ২৯ জানুয়ারি নিলামের আলোচনা, ৫ ফেব্র“য়ারির মধ্যে বিড আর্নেস্ট মানি প্রদান, ৭ ফেব্র“য়ারি নিলামের চিঠি প্রদান, ১২ ফেব্র“য়ারি মক নিলাম, ১৩ ফেব্র“য়ারি নিলাম এবং ১৪ ফেব্র“য়ারি নিলামে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে বিজয়ীর নাম ঘোষণা করা হবে।

পাঠকের মতামত